অনলাইন ব্যবসায় নারীরা এগিয়ে যেভাবে

অনলাইন ব্যবসায় নারীরা এগিয়ে যেভাবে

আজকাল অনলাইন: ছোট বেলা থেকেই পরিবার ও সমাজের জন্য কিছু করার স্বপ্ন লালন করে বেড়ে ওঠে নোভা। উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে বিশ^বিদ্যালয়ে অনার্সে ভর্তি হন । প্রথম বর্ষ পার না হতেই পরিবারের ইচ্ছায় বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হয় তাকে। তবে পড়াশোনার তীব্র ইচ্ছায় নানা প্রতিবন্ধকতা পার হয়ে অনার্স-মাস্টার্স শেষ করেন। এরপর বেসরকারি একটি ব্যাংকে কর্মজীবন শুরু করেন। দক্ষতার সঙ্গেই সংসার ও কর্মস্থল সামলে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। প্রথম সন্তান জন্মের পরই সব পাল্টে যেতে থাকে। অফিস-সন্তান-পরিবার সামলাতে গিয়ে হিমশিম খান। সন্তানের জন্যই চাকরি ছাড়ার সীদ্ধান্ত নেন।
এভাবেই শিক্ষাজীবন শেষ করে সফলভাবে কর্মজীবন শুরু করেও নানা প্রতিবন্ধকতায় অনেক নারীই কর্মস্থল থেকে ছিটকে পড়ে। নানাভাবে নানা দিক থেকেই আসে প্রতিবন্ধকতা । পরিবার, সমাজ এবং কর্মক্ষেত্র সব যায়গায় নারীকে মুখোমুখি হতে হয় নানা বাধা বিপত্তির। কিন্তু সব প্রতিবন্ধকতা পার হয়ে এখন অধিকাংশ নারীই এগিয়ে যাচ্ছে। আর যারা পথ হারিয়ে কর্মস্থল থেকে ঝরে সংসারবন্দি হয়ে পড়ছেন তাদের জন্য হচ্ছেন অনুপ্রেরণা।
ই কমার্সের মাধ্যমে নারীরা ঘরে বসে ব্যবসা করে স্বাবলম্বী হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন তাই অনলাইন ব্যবসায়ের দিকে ঝুঁকছেন নারী উদ্যোক্তারা। বাংলাদেশে এখন বছরে এক হাজার কোটি টাকার পণ্য বিক্রি হয় অনলাইনে। আর প্রতিদিন অনলাইনে ডেলিভারি দেয়া হয় ২০ হাজার অর্ডার। দেশে ওয়েব ভিত্তিক অনলাইন শপ আছে প্রায় এক হাজার। বর্তমানে আমাদের দেশে প্রায় ১০ হাজারের বেশি ফেসবুকভিত্তিক পেইজ রয়েছে, যার মধ্যে প্রায় ৮ হাজার পেজ চালান নারী উদ্যোক্তারা।
অনলাইন ফ্যাশন হাউস, জুয়েলারি হাউসসহ নিত্য পণ্যের সম্ভার এখন অনলাইনে। ঘরে বসে কল করে কিংবা মেসেজ পাঠিয়ে পছন্দের পণ্যটি ক্রেতাদের পৌঁছে দিচ্ছে অনলাইন উদ্যোক্তারা।
ব্যস্ততা, সময়ের অভাব, পছন্দের সামগ্রী না পাওয়া আর যানজট ইত্যাদির কারণে শপিং মলে না গিয়ে অনলাইনেই খুঁজে নেন পছন্দের পন্যটি।
বর্তমানে অনলাইন ব্যবসায় অন্যান্য ব্যবসায়ের তুলনায় নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে কিছু কারণে:
স্বল্প বিনিয়োগ, স্বল্প সময়,পৃথিবী জুড়ে ব্যবস,নেই কোন পরোক্ষ খরচ,স্বল্প মূল্যে কার্যকর মার্কেটিং,সহজ পরিচালনা,সহজ অনলাইন পেমেন্ট ব্যবস্থা,২৪ ঘণ্টাই ব্যবসা।
একসময় অনলাইন ব্যাংকিং, মাস্টার কার্ড, ডেবিট ক্রেডিট কার্ড, ভিসা কার্ড, মোবাইল ব্যাংকিং এসব সুযোগ সুবিধা ছিল স্বপ্নের মত। কিন্তু এই ডিজিটাল যুগের কল্যাণে আজ সবার হাতে হাতে বিভিন্ন ক্রেডিট কিংবা ডেবিট কার্ড যা অনলাইন ব্যবসাকে করেছে আরও সহজ আর নিরাপদ।
ঘরে বসে না থেকে নিজেকে যেন হারিয়ে ফেলতে না হয় সেজন্যই নারীরা অনলাইন ব্যবসায় আগ্রহী হয়ে উঠছেন। ঘরে বসেই সব সামলানো যায় বলে তারা এদিকে ঝুকতে থাকেন। এ ধরনের ব্যবসায় জড়িত থেকে নারীরা ঘরে বসেই যেমন উপার্জনের সুযোগ পাচ্ছেন, তেমনি ক্রেতারাও ঘরে বসে তাদের পণ্যটি বুঝে নিচ্ছেন। বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে নারীদের ঘরে বসে কাজ করার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে ই-কমার্স। গত কয়েক বছরে অনলাইনভিত্তিক ই-কমার্স ব্যবসার বিশাল একটি বাজার গড়ে উঠেছে। আর দেশের অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের একটি বড় অংশেরই নেতৃত্ব দিচ্ছেন নারী উদ্যোক্তারা.