গোধূলির আকাশ, হাকালুকির জলরাশিতে মিতালীর গল্প

গোধূলির আকাশ, হাকালুকির জলরাশিতে মিতালীর গল্প

আবদুল কাদের তাপাদার,সিলেট: আকাশ আর জমিন। আকাশ দিনে কতোবার বদলায়। জমিন বদলায় না? জমিনও বদলায়।পাহাড়ের পাদদেশে যে আকাশ আমরা দেখি সেটাতো দিনরাত মিতালি গড়ে পাহাড়ের সাথে।
এমনই গোধূলির হাওরের আকাশ মাঝে মাঝেই লাল আভায় অপূর্ব হয়ে ধরা দেয়। হাওরের জলরঙ জলরাশিতে মাতাল হয়ে উঠে আকাশ।
বর্ষায় দেশের সর্ববৃহৎ হাওর হাকালুকির সাগরসম জলরাশিতে আমরা শৈশবে হারিয়ে যেতাম। চোখের চাহনিতে মনে হতো আকাশ জমিনে জলরাশি ছাড়া যেনো আর কিছুই নেই। আহা!
মনোমুগ্ধকর এই জলরাশির হাতছানিতে গোধূলিতে গোটা আকাশ যেনো ভেঙে পড়তো হাকালুকির জলরাশিতে।

আজ বুধবার  এমনই একটি হাওরে গোধূলির আকাশ মনোমুগ্ধকর হয়ে উঠে। যতোদূর চোখ যায় আকাশটা ধরা দেয় আমার ছোট্ট স্মার্ট ফোনের ক্যামেরায়। সবসময়ই কি গোধূলি লগ্নটা এমন হয়? সবসময়ই কি হাওর জলরাশিতে টুইটুম্বর হয়ে মনমাতানো রূপকথার কাব্য হয়ে উঠে!
যখন সোনালী ধানের রোমাঞ্চকর দৃশ্যপট তৈরি হয় হাওরাঞ্চলে তখনও কিন্তু আকাশ মিতালি গড়ে।আবার সবুজের সমারোহে আকাশ আরেক রকম দৃষ্টিতে দৃশ্যমান হয়ে লালিমার সাথে আপন হয়ে একাকার হয়ে যায়।
হাওরের কতো রূপ আমাদের মুগ্ধ করে। বর্ষায় জলরাশি, হেমন্তে সোনালী ফসলের বিস্তীর্ণ প্রান্তর আর আশ্বিন কার্তিকে সবুজের সাথে মিলেমিশে একাকার। হাওরে আকাশ কিংবা আকাশে হাওর সত্যিই সবসময়ই মনোমুগ্ধকর, মনমাতানো